Local News

রহস্যজনক ঘটনায় আগুনে দগ্ধ হয়ে নিহত তরুণীর বাড়িতে পা রাখলেন আইন মন্ত্রী রতন লাল নাথ

রাঙ্গাছড়ার ঘটনাই যেই যুক্ত থাকুক না কেন পুলিশ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবে।

তবে এলাকার তরুণী মৃত্যুর যে বীভৎস ঘটনা হয়েছে সেটার রহস্য ঠিকভাবে উন্মোচিত হতে পারে ক্রাইম ব্রাঞ্চের হাতে তদন্তভার অর্পণের পর। সিধাই থানাধীন রাঙ্গাছড়া এলাকায় মর্মান্তিক মৃত্যুর শিকার হওয়া তরুণীর বাড়ি পরিদর্শন কালে এবিষয়ে গুরুত্ব তুলে ধরলেন স্থানীয় বিধায়ক তথা আইন মন্ত্রী রতন লাল নাথ।

সেখানে গিয়ে মৃতার পরিবারকে সমবেদনা জানানোর পাশাপাশি তাদের মেয়ের মৃত্যুর সুবিচারের জন্য সরকার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে বলেও আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। রহস্যজনক ঘটনায় আগুনে দগ্ধ হয়ে নিহত তরুণীর বাড়িতে পা রাখলেন আইন মন্ত্রী রতন লাল নাথ।

ঘটনাস্থল রাঙ্গাছড়া মোহনপুর বিধানসভা কেন্দ্রের আওতাধীন হওয়ায় এলাকার জনপ্রতিনিধিও তিনি। স্বাভাবিক কারণে নিজ বিধানসভা কেন্দ্রের জনসাধারণের সুখ দুঃখ এবং সমস্যা লাঘবের গুরুদায়িত্বও রয়েছে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির কাঁধে।

সিধাই থানাধীন রাঙ্গাছড়ার তরুণীর বীভৎস মৃতদেহ উদ্ধারের সময়ে সরকারি কাজে বহিঃরাজ্যে ছিলেন এলাকার বিধায়ক রতন লাল নাথ। তবে মর্মান্তিক এই ঘটনাটি জানার পর পার্টি নেতা কর্মীদের এবিষয়ে ব্যবস্থা নিতে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি। এছাড়া পুলিশ ও প্রশাসন থেকে পুরো ঘটনার খোঁজখবর নিচ্ছিলেন। রাজ্যে ফিরে আসার পর রবিবার সেই অভিশপ্ত রাঙ্গাছড়া পরিদর্শন করলেন স্থানীয় বিধায়ক। তার সাথে ছিলেন বিজেপির প্রদেশ সভাপতি ডঃ মানিক সাহা সহ অন্যান্য নেতৃবর্গ। উল্লেখ্য গত বৃহস্পতিবার বিকেলে মোহনপুর বাজারে এসে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিল বিএ পাশ করা শিক্ষিতা ২২ বছরের যুবতী মেয়েটি।

পরদিন অর্থাৎ শুক্রবার সকালে তার অর্ধদগ্ধ দেহ বাড়ি থেকে ৫০ মিটার দূরবর্তী ধানি জমিতে উদ্ধার হয়েছিল। বাড়ির পাশেই পাওয়া গিয়েছিল তরুণীর হাত ব্যাগ সহ অন্যান্য সামগ্রীগুলি। যুবতীর পোড়া দেহ উদ্ধারের পরপরই শুরু হয়েছিল পুলিশের দৌড়ঝাঁপ। কিছু সময় বাদে আটক করা হয়েছিল সন্দেহভাজন মুখ্য অভিযুক্ত স্বরূপ পালকে। তার কাছ থেকেই উদ্ধার হয়েছিল নিহত তরুণীর মোবাইলটি। যে কারণে স্বরূপের বিরুদ্ধে এই ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহ প্রবল হয়ে যায়। সন্দেহভাজন যুবককে থানায় এনে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ চালিয়ে যান পুলিশের উচ্চপদস্থ আধিকারিকেরা।

দেহ উদ্ধারের একদিন বাদেই শনিবার দুপুরে থানায় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও খুনের মামলা দায়ের করেন নিহত তরুণীর পিতা। আর এদিন মৃতার বাড়িতে ছুটে যান মহিলা কমিশনের প্রতিনিধি সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল এবং আইনজীবী সংগঠনের প্রতিনিধিরা। সকলেই পাশে থাকার আশ্বাস দেন। এই অবস্থায় রবিবার স্থানীয় জনপ্রতিনিধি রতন লাল নাথকে কাছে পেয়ে মেয়েকে অকালে হারানোর  দুঃখ যন্ত্রণা তুলে ধরেন মৃতার অসহায় পিতামাতা। আইন মন্ত্রীও তাদের পাশে থেকে সুবিচার পাইয়ে দেওয়ার আশ্বাস জ্ঞাপন করেন। পাশাপাশি সন্তান হারানো মা বাবাকে সমবেদনার সুরে সান্তনা দেন তিনি। সংবাদ মাধ্যমের সাথে সাক্ষাতকারে রতন লাল নাথ বলেন, এই ঘটনা বেশ জটিল। তাই পুলিশ তদন্তের ক্ষেত্রে তাদের মতোই কাজ করবে। দোষীরা এই ঘটনায় যথেষ্ট সাক্ষ্য প্রমাণ রেখে গিয়েছে। এক্ষেত্রে ক্রাইম ব্রাঞ্চ দিয়ে তদন্ত করার বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন তিনি। দোষীদের কঠোর শাস্তিরও দাবি রাখেন তিনি। চাঞ্চল্যকর এই হত্যা মামলায় ময়না তদন্ত এবং ফরেনসিক রিপোর্ট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলেও মন্তব্য করেন আইন মন্ত্রী। আর এই ঘটনা যে একার পক্ষে সম্ভব নয় সেটাও নিজের বক্তব্যে প্রকাশ করেন। তরুণী হত্যা মামলায় মৃতার বাড়ির পক্ষ থেকে দায়ের করা অভিযোগ মূলে পুলিশ সমস্ত ধারায় মামলা গ্রহণ করেছে।

খুন, ধর্ষণ সহ ইত্যাদি ধারায় মামলা নেওয়া হয়েছে। পুলিশ অন্যতম অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে। সাক্ষাতে জানিয়েছেন স্থানীয় বিধায়ক রতন লাল নাথ। মৃতার পরিবারের সাথে কথা বলে আইন মন্ত্রী সহ অন্যান্য নেতৃবর্গ ঘটনাস্থলটিও পরিদর্শন করেন। কিভাবে এমন নৃশংস হত্যাকাণ্ড সংঘটিত করা হয়েছে সেটা নিয়েও বিস্ময় প্রকাশ করা হয়। ঘটনাটি নিয়ে প্রতিক্রিয়ায় বিজেপি রাজ্য সভাপতি ডঃ মানিক সাহা ঘটনার পর কি কি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে সেই সম্পর্কে অবহিত করেন। ঘটনাটি অত্যন্ত বেদনাদায়ক বলেও মন্তব্য করেন তিনি। ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে আইন মন্ত্রী সিধাই থানায় গিয়ে পদস্থ পুলিশ আধিকারিকদের সাথেও কথা বলেন। সেই সময় তিনি তদন্তের অগ্রগতি বিষয়ে বিস্তারিত তথ্যও জেনে নেন।

এদিকে স্থানীয় বিধায়কের আশ্বাস পেয়ে মেয়ের অকাল মৃত্যুর সুবিচার পাওয়া নিয়ে কিছুটা হলেও আশার আলো দেখতে পাচ্ছেন গরীব এবং অসহায় মা বাবা। 

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.