Local News

কোভিডের প্রকোপ থেকে ত্রিপুরাবাসীকে সুরক্ষিত রাখতে ক্লান্তিহীন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব

কোভিডের প্রকোপ থেকে ত্রিপুরাবাসীকে সুরক্ষিত রাখতে ক্লান্তিহীন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব। গতকাল, মঙ্গলবার একাধিক জেলা সফরের পর আজ বুধবার মুখ্যমন্ত্রী গিয়েছিলেন ধলাই ও খোয়াই জেলায়। কোভিড কেয়ার সেন্টার পরিদর্শনের পাশাপাশি দুই জেলাতেই কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে প্রশাসনিক বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী।

এদিন ধলাই জেলার আমবাসায় পিআরটিআই কোভিড কেয়ার সেন্টার ও এসটি বয়েজ হোস্টেলের কোভিড কেয়ার সেন্টার পরিদর্শন করেন মুখ্যমন্ত্রী। দু’টি জায়গাতেই আধিকারিক ও স্থানীয় প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। কোভিড কেয়ার সেন্টারে থাকা রোগীদের যাতে কোনও সমস্যা না হয়, সে ব্যাপারে তাঁদের আরও যত্নবান হওয়ার নির্দেশ দেন বিপ্লব দেব।

ধলাইয়ের কোভিড কেয়ার সেন্টার পরিদর্শন করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “রাজ্যের জেলাগুলির স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে আরও শক্তিশালী করার জন্য পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। কারণ দূরের জেলাগুলি থেকে রোগীকে আগরতলা পাঠাতে চার-পাঁচ ঘণ্টা সময় লেগে যায়। যার ফলে সমস্যা বেশি হয়। ধলাইতে প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রকে দু’দিনের মধ্যে ১৫ বেডের কোভিড কেয়ার হাসপাতাল হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে। আগরতলা থেকে পাঠিয়ে দেওয়া হবে অক্সিজেন বেড। জরুরি বিভাগে যে ইঞ্জেকশন প্রয়োজন তাও পাঠিয়ে দেওয়া হবে জিবি থেকে।” তিনি আরও বলেন, “আমবাসাতে ৩৩৫ শয্যাবিশিষ্ট কোভিড হাসপাতাল রয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে ৫টি অক্সিজেন বেড। আরও ১৫টি অক্সিজেন বেড বাড়ানো হচ্ছে। ২৫ টি অক্সিমিটার রয়েছে এই হাসপাতালে । হোম আইসোলেশন এর জন্য সরবরাহ করা হয়েছে আরও ১০০টি অক্সিমিটার।”

তারপর ধলাই জেলার আমবাসায় জেলাশাসকের কার্যালয়ে প্রশাসনিক বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী। হোম আইসোলেশনে থাকা রোগীদের জন্য রাজ্য সরকার কর্তৃক বরাদ্দ ১৫০০ টাকা এবং অক্সিমিটার যাতে প্রত্যেকের কাছে পৌঁছয় তা সুনিশ্চিত করার নির্দেশ দেন তিনি। সেইসঙ্গে এখনও যা যা খামতি রয়েছে তা দ্রুত পূরণ করার ও পরিষেবার ব্যাপারে আরও তৎপর হওয়ার ব্যাপারেও প্রশাসনিক আধিকারিকদের নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী।

ধলাই জেলার সফর শেষ করে মুখ্যমন্ত্রী এদিন যান খোয়াই জেলায়। সেখানকার কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে জেলা শাসকের কার্যালয়ে প্রশাসনিক আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন বিপ্লব দেব। এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাজ্য মন্ত্রিসভার মাননীয় সদস্য শ্রী মেওয়ার কুমার জামাতিয়াজী। জেলা ওয়াড়ি যে কোভিড হেল্পলাইন নম্বর চালু রয়েছে, সেখানকার কল সেন্টারের দায়িত্বে যাঁরা থাকবেন তাঁদের নির্দেশ দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “সাধারণ মানুষ ফোন করলে অত্যন্ত বিনয়ের সঙ্গে কথা বলতে হবে। যদি কোনও রোগীর অবস্থা গুরুতর হয় তাহলে ফোনে কথা বলেই দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মীর কাজ শেষ হবে না। তাঁকে জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ও চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে সংশ্লিষ্ট রোগীর সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনও করানোর বাড়তি উদ্যোগ নিতে হবে।” তারপর তুলাশিখর কোভিড কেয়ার সেন্টারেও যান মুখ্যমন্ত্রী। সেখানেও আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলেন এবং প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেন।

প্রশাসনিক আধিকারিকদের উদ্দেশে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “চিকিৎসা ব্যবস্থাকে সুদৃঢ় করে মানুষকে পরিষেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে প্রতি মুহূর্তে তৎপরতার সঙ্গে কাজ করতে হবে। যাতে কোনও রোগীকে কোনওরকম সমস্যার মধ্যে পড়তে না হয় তা সহানুভূতির সঙ্গে দেখতে হবে।”

ধলাই এবং খোয়াই দুই জেলাতেই ভারতীয় জনতা পার্টির কার্যকর্তাদের সঙ্গে মিলিত হন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। বিজেপি কার্যকর্তাদের উদ্দেশে সাধারণ মানুষ ও প্রশাসনকে সহযোগিতা করার নির্দেশ ব্যাপারে নির্দেশ দেন তিনি।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.